২৩ মার্চ ,শনিবার, ২০১৯

শিরোনাম

> বিশেষ প্রতিবেদন

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

১৭ জুলাই ,মঙ্গলবার, ২০১৮ ২০:১৪:২০

‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’


‘আমাকে ক্রয়ফায়ারে দিতে চেয়েছিলেন ওসি’

শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী


পকেটে ইয়াবা ও অস্ত্র দিয়ে ফাঁসিয়ে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ ক্রসফায়ারে মেরে ফেলার চেষ্টাও চালিয়েছিল বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রামের শিক্ষানবিশ আইনজীবী সমর কৃষ্ণ চৌধুরী।

সদ্য জামিনে মুক্ত ষাটোর্ধ্ব এই ব্যক্তি এই দাবির পাশাপাশি বোয়ালখালী থানা হাজতে তার ওপর নির্যাতনের অভিযোগও তুলেছেন।বোয়ালখালীর ওসি হিমাংশু দাশ রানাসহ থানার কয়েকজন পুলিশ সদস্যের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন তিনি।যদিও সমর চৌধুরীকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন ওসি হিমাংশু দাশ। 

বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা বলেন, ‘এই ধরনের অভিযোগ আমিও পেয়েছি। মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন সমর চৌধুরী।’

অভিযোগ তদন্তের জন্য অতিরিক্ত এসপি (চট্টগ্রাম দক্ষিণ) এবং অতিরিক্ত এসপিকে (পটিয়া সার্কেল) দায়িত্ব দিয়েছেন জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, ‘ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু হয়ে গেছে। সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জামিনে মুক্ত হলেও সমর চৌধুরীর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত তার পরিবার।সমরের বড় মেয়ে বলেন, ‘গণমাধ্যম ও সাধারণ মানুষের সমর্থন থাকায় বাবাকে ফিরে পেয়েছি। কিন্তু তার ভবিষ্যত নিয়ে আমরা শঙ্কিত।

সমর চৌধুরী চট্টগ্রাম শহরে থাকলেও তার বাড়ি বোয়ালখালী উপজেলার দক্ষিণ সারোয়াতলী গ্রামে। ওই গ্রামের লন্ডনপ্রবাসী সঞ্জয় দাশের সঙ্গে তার কাকা স্বপন দাশের জমি নিয়ে বিরোধ আছে। স্বপন দাশকে আইনগত পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়ে আসছিলেন সমর চৌধুরী।

ওই ঘটনার জের ধরে সঞ্জয় দাশের প্ররোচনায় চট্টগ্রাম রেঞ্জের তৎকালীন ডিআইজি মনির-উজ-জামানের নির্দেশে সমরকে গেল ২৭ মে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এরপর তাকে ইয়াবা ও অস্ত্র মামলার আসামি করা হয়।

সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে সমর চৌধুরীকে ইয়াবা আটকের মামলায় গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। এই অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মৃত্যু নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রশ্ন তুলে আসছে।

সমর চৌধুরীকে ঘটনাটি প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। এর মধ্যেই ডিআইজি মনির-উজ-জামানকে চট্টগ্রাম থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

কারাগার থেকে মুক্তির পর সমর চৌধুরী গণমাধ্যমকে তার ওপর নির্যাতনের বর্ণনা দেন।তিনি জানান, পুলিশ তার হাতে থাকা একটি স্বর্ণের ও একটি রূপার আংটি, মোবাইল সেট, নগদ ১২ হাজার টাকা ও মানিব্যাগ কেড়ে নিয়ে হাজতে আটকে রাখে।ওই সময় তার কয়েকজন স্বজন থানায় গেলেও তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, ‘রাতের বেলায় আমি ওসি হিমাংশু দাশকে দেখে তার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি করি। তাকে বলি, তার দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী স্বপন দাশের সাথে আর কোনো যোগাযোগ রাখিনি। এ সময় ওসি হিমাংশু আমাকে লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে দিলে মাথা ফেটে যায়। পরে পাশে দাঁড়ানো দুই কনস্টেবল আমার হাতে অস্ত্র ধরিয়ে দিয়ে ছবি তোলে।’

ওই সময় পুলিশের এক এসআই তাকে প্রসাব খাওয়াতে চেয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করেন এই শিক্ষানবিশ আইনজীবী।

‘ওসি হিমাংশু বলে, শালাকে ফেলে দিয়ে আয়। এরপর হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে আমাকে গাড়িতে তোলা হয়। ওইসময় আমি আমার মেয়ে ও স্ত্রীর কী হবে বলে আকুতি করলে তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।’

গাড়িতে করে তাকে চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে জানান সমর। চোখ বাঁধা অবস্থায় কী করে চরণদ্বীপ বুঝলেন- প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘ড্রাইভার কোথায় যাবে জানতে চাইলে তাকে বলেছিল, চরণদ্বীপ নিয়ে যেতে।’

সমর আরও বলেন, ‘আমি হ্যান্ডকাফটা একটু হাল্কা করে দিতে বললে একজন বলে, আর ২-৩ মিনিট আছে। তারপর তোকে তো বেহশতে পাঠিয়ে দেব’।

‘চরণদ্বীপ এলাকায় নিয়ে গিয়ে আমার চোখ খুলে দিয়ে চলে যেতে বলে। ওই সময় আমার মনের মধ্যে ভয় চলে আসে। আমি না গিয়ে তাদের সাথে দাঁড়িয়ে থাকি এবং ঠাকুরের নাম জপ করতে থাকি।’ 

সমরের ভাষ্য, ‘শেষ পর্যন্ত কিভাবে বেঁচে ফিরে এলাম, সেটা এখনো নিজেকে বিশ্বাস করাতে পারিনা।’


অরিন/নিউজ টোয়েন্টিফোর


 


'দেশের সব এলাকাকে রেল যোগাযোগের আওতায় নিয়ে আসা হবে'
তৃতীয় ধাপের প্রচার-প্রচারণার কাজ শেষ হচ্ছে মধ্যরাতে
নতুন নির্বাচনের দাবিতে এপ্রিলে ঐক্যফ্রন্টের আন্দোলন
ঘানায় দুটি বাসের সংঘর্ষে নিহত ৫০
শঙ্কামুক্ত ওবায়দুল কাদের, দেশে ফিরবেন এপ্রিল মাসে!
সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিক বিজয়ের 
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি
ডাকসুর দায়িত্ব গ্রহণের ঘোষণা দিলেন নুর
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত করলেন সুলতান মনসুর
মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে, মা-মেয়ে নিহত
হায়দরাবাদে দলের যোগ দিয়েছেন সাকিব
পদ্মা সেতু ১৩৫০ মিটার দৃশ্যমান
বরিশালে বাস-মাহিন্দ্র সংঘর্ষ: নিহত বেড়ে ৫
বরিশালে বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে নিহত ৩
রাজৈরে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের নির্দেশ
চীনে বিস্ফোরণে নিহত ৪৭, আহত ৯০
কক্সবাজারে ‘গোলাগুলি’, নিহত ৩
দশম শ্রেণির ছাত্রীর গণধর্ষণের ভিডিও ধারণ
কাটার মাস্টার মোস্তাফিজের বিয়ে আজ
নিউজিল্যান্ডের পত্রিকায় আরবি হরফে সালাম
গুরুদাসপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু নিহত, আহত ৪
'দেশের সব এলাকাকে রেল যোগাযোগের আওতায় নিয়ে আসা হবে'
তৃতীয় ধাপের প্রচার-প্রচারণার কাজ শেষ হচ্ছে মধ্যরাতে
স্থবির রাঙামাটির বাঘাইছড়ির জনজীবন
শিয়াল ধরার ফাঁদে বিদ্যুতায়িত হয়ে শিশুর মৃত্যু
'কয়েক দিনের মধ্যে বিএনপিকে আর খুঁজে পাওয়া যাবে না'
নতুন নির্বাচনের দাবিতে এপ্রিলে ঐক্যফ্রন্টের আন্দোলন
ঘানায় দুটি বাসের সংঘর্ষে নিহত ৫০
শঙ্কামুক্ত ওবায়দুল কাদের, দেশে ফিরবেন এপ্রিল মাসে!
সুবিধা বঞ্চিত পথ শিশুদের জন্য ১ টাকায় খাবার
জনতার হাতে ভুয়া ডিবি সদস্য আটক 
পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' ছিনতাইকারি নিহত
সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিক বিজয়ের 
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি
ডাকসুর দায়িত্ব গ্রহণের ঘোষণা দিলেন নুর
বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত করলেন সুলতান মনসুর
মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে, মা-মেয়ে নিহত
হায়দরাবাদে দলের যোগ দিয়েছেন সাকিব
পদ্মা সেতু ১৩৫০ মিটার দৃশ্যমান
বরিশালে বাস-মাহিন্দ্র সংঘর্ষ: নিহত বেড়ে ৫
মসজিদে হামলা নিয়ে বিশ্বের মুসলিম নেতাদের বক্তব্য
‘নতুন জঙ্গি বিমান প্রস্তুত; রিয়াদ-আবু ধাবিতে হামলা হবে’
বিয়ে করলেন সাব্বির রহমান
দশম শ্রেণির ছাত্রীর গণধর্ষণের ভিডিও ধারণ
হানিফ পরিবহনের দু'বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
নিউজিল্যান্ডের হামলার ভিডিও প্রচার করে ধরা কিশোর
তিন ডাকাতকে চিনলেন রোজী সিদ্দিকী
ঝালকাঠিতে যুবকের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার
হামলাকারীর অস্ত্র কেড়ে মুসল্লির প্রাণ বাঁচায় খাদেম
মোস্তাফিজের বিয়ে শুক্রবার, কেনাকাটা শেষ
‘হাততালি ও রেটিং পেতে মুসলিমদের দায়ী করি’
মৃতের ভান করে বাঁচলেন বাংলাদেশি ওমর জাহিদ
ট্রাম্প বললেন, শ্বেত সন্ত্রাসবাদ হুমকি নয়
মসজিদে হামলায় নিহতদের তালিকা
পাকিস্তানের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি চীনের, ক্ষুব্ধ ভারত
‌‘ভারত ছয়টি মারলে পাকিস্তান মারবে ১৮টি’
তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা তুলে দেওয়ার নির্দেশ
‘কনসেনট্রেশন হারিয়েছিলেন’ নুর
পাকিস্তানে ঢুকতেই ভারতীয় ড্রোন ভূপাতিত
১৩ বছরের মেয়েকে যৌনপল্লীতে বিক্রিকালে ধরা বাবা!

সব খবর