২৪ মার্চ ,রবিবার, ২০১৯

শিরোনাম

> বাংলাদেশ

>> রাজনীতি

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

৩০ অক্টোবর ,মঙ্গলবার, ২০১৮ ১৮:০৮:৫২

সংবিধান পরিবর্তন এক মিনিটের ব্যাপার: ড. কামাল


সংবিধান পরিবর্তন এক মিনিটের ব্যাপার: ড. কামাল

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ড. কামাল হোসেন


প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সংলাপের আমন্ত্রণের চিঠি পাওয়ার পর, জাতীয় ঐক্য-ফ্রন্ট নেতা বলেন, তারা খোলা মন নিয়ে কথা বলতে এসেছেন, কোনো দলীয় স্বার্থ সিদ্ধির জন্য নয়।

তিনি বলেন, আমি বলব জাতীয় স্বার্থে একটা গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আমরা যেমন চাই, আপনিও চান...আমরা উভয়েই সেটাই চাই, তাহলে কেন উপায় বের করা যাবে না।

জাতীয় ঐক্য-ফ্রন্টের সাত-দফা দাবি নিয়ে সরকারের নেতা-মন্ত্রীরাও গত বেশ কিছুদিন ধরে ক্রমাগত বললেন, এসব দাবির অনেকগুলোই মানার প্রশ্নই ওঠে না, কারণ বর্তমান সংবিধানে এরকম কিছুর কোনো সুযোগ নেই। খবর বিবিসির

ঐক্য-ফ্রন্টের প্রধানের দাবি- সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন- সেটিকে এ যুক্তিতেই দিনের পর দিন সরকারের পক্ষ থেকে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

সংলাপে কি কৌশল হবে ঐক্যফ্রন্টের?
এখন তার চিঠিতে ‌‘সংবিধান-সম্মত’ শব্দটি জুড়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী কি তাহলে তাদের সেই অবস্থানেই অনড় থাকার বার্তা দিয়ে দিলেন?

এই প্রশ্নে ড. কামাল হোসেন বলেন, আলোচনার মাধ্যমেই বোঝা যাবে সরকার কতটা করার জন্য প্রস্তুত, কোন কোন ইস্যুতে তাদের দ্বিধা আছে।

তবে একই সঙ্গে তিনি, কিছুটা তো বুঝতে পারছি তারা সংবিধানের বিষয়গুলোকে তুলতে চাইবেন, কিন্তু এই সংবিধানকে তো তারাই সংশোধন করেছেন, সংকীর্ণ স্বার্থে ব্যাপারগুলো যোগ করেছেন।

আমরা তাদের বলব, এটা তো সংবিধান নয়, এটা তো সংশোধনী... অবশ্যই নির্বাচন সংবিধান সম্মত হবে, অসাংবিধানিকভাবে তো নির্বাচন করা যায় না, কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কীভাবে সংশোধনী থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

লক্ষ্য তো একটা যে সবার অংশগ্রহণে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন। সংবিধান এবং আইন পরিবর্তন তো কোনা ব্যাপারই না, এক মিনিটেই তা হতে পারে।

ড. কামাল হোসেন বলেন, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করার যে দাবি তারা দিয়েছেন, সেটা একবারেই নতুন কিছু নয়। ২০০৭ সালে শেখ হাসিনা যখন বিরোধী দলে ছিলেন, সেই একই কথা বলে ২০০৮ এর নির্বাচন হয়েছে।

তবে সংলাপে তাদের সুনির্দিষ্ট কৌশল নিয়ে বেশি কথা বলতে রাজী হননি ড. হোসেন। কালকে যেহেতু আলোচনা, সুতরাং বেশি কিছু বলতে চাই না। আমরা আশা করব সরকার আমাদের সাত দফা দাবি মেনে নিক। বলেন ড. কামাল হোসেন।

ড. হোসেন বলেন, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করার জন্য অবশ্যই সরকার চাপে রয়েছে। গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করাটাই চাপ। তারা জানেন, নির্বাচনে মানুষ অংশগ্রহণ করে না, সেই নির্বাচন থেকে কিছু পাওয়া যায় না। এই উপলব্ধি নিশ্চয়ই তাদের হয়েছে। তা না হলে তো আমাদের আলোচনায় ডাকার কোনো দরকার তো তাদের ছিল না।

আমি আগে থেকে কোনো অনুমান করতে চাই না। লক্ষ্য একটাই সবই একটা নির্বাচন। আমরা উভয়েই সেটাই চাই। বলেন বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)


জালভোট দেয়ার সময় প্রিসাইডিং অফিসার আটক
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেলের ২ আরোহী নিহত
কটিয়াদীয় ভোটগ্রহণ স্থগিত, দুই পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার
চন্দনাইশে ভোটকেন্দ্রে গোলাগুলি, পুলিশ সদস্য গুলিবিদ্ধ 
শিক্ষার্থীকে ধাক্কা দিয়ে হত্যা, সেই হেলপার গ্রেপ্তার
প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই
১১৭ উপজেলা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু 
বরুড়ায় আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫
লালবাগে কাগজের কারখানায় আগুন 
ফসলি জমি কেটে পুকুর, ৭ দিনের কারাদণ্ড
বাকবিতণ্ডার পর ছাত্রকে ‘বাসচাপা দিয়ে হত্যা’
বৈঠকে যুবলীগ সভাপতির হামলা, আহত ৫
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রাকচাপায় পথচারী নিহত
সুনামগঞ্জে হাওর আন্দোলনের নেতা খুন, মানববন্ধন
জুয়াড়িকে হত্যা করল জুয়াড়ি
চীনের বিরুদ্ধে ‌‘যুদ্ধের’ মহড়া যুক্তরাষ্ট্রের
‘প্রাধানমন্ত্রীল নির্দেশ না মানা ফ্যাশন’: নাসিম
মামলার ভয় পেলে দায়িত্ব ছাড়ুন: গয়েশ্বর
আজীবন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কাজ করবে ইস্ট-ওয়েস্ট মিডিয়া
 'গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ থেকে আওয়ামী লীগ দূরে সরে'
জালভোট দেয়ার সময় প্রিসাইডিং অফিসার আটক
বেশিরভাগ কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম!
শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ চলছে, উপস্থিতি কম
সাকিবের জন্মদিনে ‘জয়’ উপহার দিতে চায় হায়দরাবাদ
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেলের ২ আরোহী নিহত
কটিয়াদীয় ভোটগ্রহণ স্থগিত, দুই পুলিশ কর্মকর্তা প্রত্যাহার
চন্দনাইশে ভোটকেন্দ্রে গোলাগুলি, পুলিশ সদস্য গুলিবিদ্ধ 
শিক্ষার্থীকে ধাক্কা দিয়ে হত্যা, সেই হেলপার গ্রেপ্তার
প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ আর নেই
১১৭ উপজেলা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু 
বরুড়ায় আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১৫
লালবাগে কাগজের কারখানায় আগুন 
ফসলি জমি কেটে পুকুর, ৭ দিনের কারাদণ্ড
বাকবিতণ্ডার পর ছাত্রকে ‘বাসচাপা দিয়ে হত্যা’
বৈঠকে যুবলীগ সভাপতির হামলা, আহত ৫
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রাকচাপায় পথচারী নিহত
সুনামগঞ্জে হাওর আন্দোলনের নেতা খুন, মানববন্ধন
জুয়াড়িকে হত্যা করল জুয়াড়ি
চীনের বিরুদ্ধে ‌‘যুদ্ধের’ মহড়া যুক্তরাষ্ট্রের
‘প্রাধানমন্ত্রীল নির্দেশ না মানা ফ্যাশন’: নাসিম
দশম শ্রেণির ছাত্রীর গণধর্ষণের ভিডিও ধারণ
‘নতুন জঙ্গি বিমান প্রস্তুত; রিয়াদ-আবু ধাবিতে হামলা হবে’
হানিফ পরিবহনের দু'বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
নিউজিল্যান্ডের হামলার ভিডিও প্রচার করে ধরা কিশোর
তিন ডাকাতকে চিনলেন রোজী সিদ্দিকী
ঝালকাঠিতে যুবকের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার
চীনের বিরুদ্ধে ‌‘যুদ্ধের’ মহড়া যুক্তরাষ্ট্রের
মোস্তাফিজের বিয়ে শুক্রবার, কেনাকাটা শেষ
পাকিস্তানে চীনা সেনাদল, উদ্বেগে ভারত
তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা তুলে দেওয়ার নির্দেশ
পাকিস্তানের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি চীনের, ক্ষুব্ধ ভারত
মসজিদে হামলায় নিহতদের তালিকা
‘কনসেনট্রেশন হারিয়েছিলেন’ নুর
নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি
১৩ বছরের মেয়েকে যৌনপল্লীতে বিক্রিকালে ধরা বাবা!
অর্ধযুগ প্রেমের পর মিরাজ-প্রীতির বিয়ে
প্রসবের সময় শিশু দ্বিখণ্ডিত!
সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত 
দুই নারী ক্রুর অর্ন্তবাসে ৩৬ সোনার বার
দুই বছরের শিশুসহ খ্রিস্টান গৃহবধূ উধাও

সব খবর