২৬ মে ,রবিবার, ২০১৯

শিরোনাম

> বাংলাদেশ

>> অপরাধ

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

২৩ এপ্রিল ,মঙ্গলবার, ২০১৯ ১৮:৪৭:০০

তরুণীকে ব্ল্যাকমেইল করে বারবার ধর্ষণ


তরুণীকে ব্ল্যাকমেইল করে বারবার ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি


ব্ল্যাকমেইল করে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে এসএসসি পরীক্ষা দেওয়া এক তরুণীকে। ফেসবুক ফ্রেন্ডের কাছে বারবার ধর্ষিত হওয়ার পর বিচার চাইতে গিয়ে মেয়েটি ফের ধর্ষিত হয় এক পুলিশ কনস্টেবলের কাছে।

 এ ঘটনায় পুলিশ কনস্টেবল বাদল হোসেন ও ফেসবুক ফ্রেন্ড জয় ঘোষ ওরফে অর্ক দুজনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তারা বর্তমানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছে। এরই মধ্যে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডও পেয়েছে পুলিশ। দু-এক দিনের মধ্যে তাদের কারাগার থেকে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, যাত্রাবাড়ী থানার সাব-ইন্সপেক্টর সুব্রত বিশ্বাস।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজধানীর ওয়ারী এলাকার বাসিন্দা ওই মেয়ের সঙ্গে জয় ঘোষের বছর দেড়েক আগে ফেসবুকে পরিচয় হয় (একই ধর্মের তারা)। ওই সময় জয় ঘোষ বিদেশে থাকত। গত বছর দেশে ফিরে সে ওই তরুণীর সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছা জানায়।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর তারা প্রথমে গুলিস্তান এলাকায় সাক্ষাৎ করে। এরপর ২৬ ডিসেম্বর তরুণীকে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে একটি বাড়ির পাঁচ তলায় নিয়ে যায় জয়। সেখানে তাকে ধর্ষণ করে ভিডিও করে রাখে। এরপর সন্ধ্যায় ভৈরব বাস টার্মিনালে গিয়ে মেয়েটিকে ঢাকার গাড়িতে তুলে দেয়।

কদিন পরই সেই ভিডিও দৃশ্য ফেসবুকে ছড়িয়ে দেবে বলে মেয়েটিকে ভয় দেখায় জয় ঘোষ। তার কাছ থেকে ভিডিওটি নেওয়ার জন্য মেয়েটি ধরনা দিতে থাকে এবং গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ফকিরাপুল এলাকার বিভিন্ন হোটেলে সে আরও অন্তত ১৫-২০ বার ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারির পর থেকে জয় ঘোষের সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় ওই মেয়ে। এ অবস্থায় জয় ঘোষ তরুণীর এক বান্ধবীকে জানায়, যদি ওই তরুণী তার সঙ্গে দেখা না করে তাহলে তার বাবা-মায়ের কাছে সব বলে দেবে। সেই বান্ধবী তাকে পরামর্শ দেয়, শেষবারের মতো জয়কে ম্যানেজ করতে পারে কি না দেখার জন্য। মেয়েটি এরপর ভিডিওটি ফেরত নেওয়ার জন্য আবার উদ্যোগ নেয়।

তরুণী গত ৩১ মার্চ সাক্ষাৎ করে জয়ের সঙ্গে। জয় ঘোষ আবারও তাকে শাহবাগ এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। কিন্তু তার চাওয়া সেই ভিডিও ফেরত দেয়নি। বরং এবারের ধর্ষণ দৃশ্য তরুণীর মোবাইল ফোনে ধারণ করে সেটি নিয়ে নেয়। এরপর তরুণীকে গুলিস্তান এলাকায় নামিয়ে দিয়ে চলে যায় জয় ঘোষ।

আর এ সময়ই পুলিশ কনস্টেবল বাদল হোসেন সিভিল ড্রেসে হাজির হয় সেই তরুণীর কাছে। পুলিশ পরিচয় জেনে মেয়েটি তার সহযোগিতা চায়। সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে কনস্টেবল বাদল তাকে যাত্রাবাড়ী থানার দনিয়া এলাকার একটি বাড়ির ছয় তলার ফ্ল্যাটে নিয়ে যায়। সেখানে দুই পুলিশ কনস্টেবল পরিবার নিয়ে বসবাস করে। সেখানে নিয়ে রাতের বেলা তাকে ধর্ষণ করে পুলিশ কনস্টেবল বাদল।

এ ঘটনার খোঁজ নিতে গিয়ে দুই ধরনের তথ্য পাওয়া গেছে। ধর্ষিতার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে—পুলিশ পরিচয় জানা সত্ত্বেও যাত্রাবাড়ী থানায় ধর্ষণের মামলার করার সময় এজাহারে বাদলের পুলিশ পরিচয় লেখা হয়নি। তবে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সুব্রত বিশ্বাস গতকাল সন্ধ্যায় জানান, ‘যখন মামলাটি করা হয়েছিল তখন শুধু বাদল হোসেন নামেই করা হয়। পরে তাকে আটকের পর জানা যায় যে সে পুলিশ কনস্টেবল।’

তিনি আরও জানান, দনিয়ার যে বাড়িটিতে মেয়েটিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেটার মালিক, দারোয়ান ও পুলিশ কনস্টেবলদের সঙ্গে কথা হয়েছে। সবাই জানিয়েছে ৩১ মার্চ রাতে বাদল হোসেন তার স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে ওই বাড়িতে তুলেছিল তরুণীকে। তবে ধর্ষণের শিকার তরুণী সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেছেন, কনস্টেবল বাদল নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়েই তার সঙ্গে কথা বলে। 

পুলিশ জেনেই তার কাছে সহযোগিতা চেয়েছিল সে। বাদল তাকে বলেছিল দানিয়া এলাকায় দুই পুলিশ আছে। সেই বাসায় গিয়ে জয় ঘোষকে ডেকে আনা হবে। কিন্তু তাকে রাত ১২টার দিকে একটি কক্ষে নিয়ে দরজা লাগিয়ে দেয় বাদল। এ সময় সে চিৎকার করলে তাকে ভয় দেখানো হয়। তার চিৎকার শুনে কেউ এগিয়ে আসেনি বলে তার দাবি।

তদন্ত কর্মকর্তা জানান, বাদল হোসেন ও জয় ঘোষ দুজনের বাড়িই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। ধারণা করা হচ্ছে তারা একে অপরের পরিচিত। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর আমরা সব তথ্য পেয়ে যাব।’


(নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল)
 


শেখ হাসিনাকে ইফতারের দাওয়াত দিতে যাচ্ছে বিএনপি
‘নিয়ন্ত্রণহীন রাঙামাটির ঈদ বাজার’
নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীনকে বদলি
‘বেগম জিয়াকে মেরে ফেলতে চাইছে বিএনপি’
'দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার'
‘রোজায় ইনকামটা একটু কম করলে কী হয়’
ইরানি ইঞ্জিনিয়ার আমেরিকায় হস্তান্তর
নবজাতককে পাঁচতলা থেকে ফেলে দিল মা
কয়লা খনির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসী, বিক্ষোভ 
প্যাট্রিয়ট লক্ষ্য করে ইয়েমেনের ড্রোন হামলা
জঙ্গি হামলায় নাইজেরিয়ার ২৫ সৈন্য নিহত
আদালত বদলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার চেয়ে খালেদা জিয়ার রিট
বান্দরবানে আ.লীগের ডাকা অর্ধদিবস হরতাল চলছে
বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী নিহত
মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় তিন বন্ধু মৃত্যু
প্রধান শিক্ষককে কোপাল সহকারী শিক্ষক
বৃষ্টিতে ভেসে উঠল ১০ বস্তা সরকারি ওষুধ!
নজরুল আমাদের প্রেরণা: শিক্ষামন্ত্রী
পরকীয়া প্রেম, ধাওয়া খেয়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যু
জেএসএস এর কেন্দ্রীয় নেতাসহ আটক ৪
শেখ হাসিনাকে ইফতারের দাওয়াত দিতে যাচ্ছে বিএনপি
‘নিয়ন্ত্রণহীন রাঙামাটির ঈদ বাজার’
নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীনকে বদলি
‘বেগম জিয়াকে মেরে ফেলতে চাইছে বিএনপি’
'দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার'
ঈদে তিন ধাপে নিরাপত্তা দেবে পুলিশ
ধান ন্যায্য মূল্যসহ বিভিন্ন দাবিতে যশোরে বিক্ষোভ
‘রোজায় ইনকামটা একটু কম করলে কী হয়’
ইরানি ইঞ্জিনিয়ার আমেরিকায় হস্তান্তর
নবজাতককে পাঁচতলা থেকে ফেলে দিল মা
কয়লা খনির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসী, বিক্ষোভ 
প্যাট্রিয়ট লক্ষ্য করে ইয়েমেনের ড্রোন হামলা
জঙ্গি হামলায় নাইজেরিয়ার ২৫ সৈন্য নিহত
আদালত বদলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার চেয়ে খালেদা জিয়ার রিট
বিজিবি-বিএসএফ ব্যাটালিয়ন কমান্ডার বৈঠক
বান্দরবানে আ.লীগের ডাকা অর্ধদিবস হরতাল চলছে
বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী নিহত
মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় তিন বন্ধু মৃত্যু
প্রস্তুতি ম্যাচে লড়াই করে হারলো ইংল্যান্ড  
আ.লীগ নেতাকে হত্যা প্রতিবাদে বান্দরবানে হরতালে
আগামী ৫ জুন পবিত্র ঈদুল ফিতর!
মামা-ভাগনি পরিচয়ে হোটেলে উঠে ধর্ষণ!
পশ্চিমবঙ্গে আবারও মমতা
থাইরয়েডের সমস্যা দূর করার ৪ উপায়
দারিদ্রতার যন্ত্রণায় দুই সন্তানকে হত্যা করেছে বাবা 
পরকীয়া প্রেম, ধাওয়া খেয়ে ব্যবসায়ীর মৃত্যু
ইরান ইস্যুতে রাশিয়ার হুঁশিয়ারি
‘ভয়ে মার্কিন সেনাদের হাত কাঁপছে!’
সাবেক খাদ্যমন্ত্রী সরকারকে বেকায়দায় ফেলেছে: রমেশ চন্দ্র
দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
নরসিংদীতে টয়লেট থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার
অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন তিন শতাধিক যাত্রী
বিশ্বকাপ খেলা দেখা যেভাবে!
হার্ট ভালো-খারাপ বুঝবেন যেভাবে
অসহায় কৃষকের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ
মাছ চাষ নিয়ে স্বামীর সঙ্গে দ্বন্দ্ব, স্ত্রীকে গণধর্ষণ
 ১৪ বাংলাদেশিসহ ভূমধ্যসাগর থেকে ২৯০ শরণার্থী উদ্ধার
বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন মমতা 
যাত্রীকে যৌন নির্যাতন, গোল্ডেন লাইনের চালক আটক
‘হামলা চালালেও নতি স্বীকার করব না’

সব খবর